1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন

‘সমকামিতার অভিযোগেই জুলহাস-তনয়কে হত্যা’

  • প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ৪১ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্টঃবাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনার প্রটোকল কর্মকর্তা জুলহাস মান্নান ও তার বন্ধু লোকনাট্যদলের শিশু সংগঠন পিপলস থিয়েটারের কর্মী মাহবুব তনয়কে সমকামিতার অভিযোগেই হত্যা করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবদুল্লাহ আবু।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে মামলার রায়ের পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

মামলার রায়ের বিবরণ দিতে গিয়ে আবদুল্লাহ আবু বলেন, ‘জুলহাস মান্নান ও মাহবুব তনয় ছিলেন একটি সমকামী সংগঠনের নেতা। তাই তাদের হত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আসামিরা। সে অনুযায়ী তারা ওই দুইজনকে হত্যা করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের আইনে সমকামিতা নিষিদ্ধ। তাদের বিচার করার জন্য আইন আছে। সেই আইনে সমকামীদের বিচার হবে। কিন্তু কেউ সমকামিতা করলে তাকে হত্যা করা যাবে না।’

বিজ্ঞাপন

আদালতে আসামিদের অসদাচরণ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আদালতে যখন বিচারক রায় পড়ছিলেন আসামিরা হাসাহাসি করছিলেন। এর আগে কাঠগড়ায় হাতকড়া পরা নিয়ে পুলিশের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়েছেন। তাদের মধ্যে কোনো অনুশোচনা বা ভয় ছিলো না। এ থেকেই বোঝা যায় তারা অপরাধের সঙ্গে কতটা সম্পৃক্ত ছিলেন।’

‘এই আসামিরা গ্রেফতারের আগে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চেষ্টা করেছিল। তারই ধারাবাহিকতায় এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা।’

বিজ্ঞাপন

রায়ে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া পলাতক দুই আসামিকে গ্রেফতারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পলাতক আসামিদের ধরতে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।’

এর আগে হত্যা মামলায় চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল জিয়াসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের পঞ্চাশ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশও দেয়া হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল জিয়া, আকরাম হোসেন, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন, আরাফাত রহমান, শেখ আব্দুল্লাহ ও আসাদুল্লাহ। এদের মধ্যে মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল জিয়া ও আকরাম হোসেন পলাতক রয়েছেন।

মামলার অন্য দুই পলাতক আসামি সাব্বিরুল হক চৌধুরী ও মওলানা জুনায়েদ আহম্মেদকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় খালাস দেয়া হয়েছে।

এম/এ/হ

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ