1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
পাঠ্যবইয়ে ভুল : এনসিটিবির চেয়ারম্যানকে হাইকোর্টে তলব মুনিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যা: রিপনের হাইকোর্টে আগাম জামিন সরকারি কর্মচারীদের গ্রেফতারে পূর্বানুমতি কেন অবৈধ নয় সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান দম্পতির বিচার শুরু বৃদ্ধা আছিয়াকে হাজির করতে এবার পুলিশকে নির্দেশ দিলেন হাইকোর্ট সিজিএম মোঃ শওকত আলীর সুস্থতা কামনায় ভার্চুয়াল দোয়া মাহফিল ই-কমার্স গ্রাহকদের স্বার্থরক্ষায় ৩৩ ভুক্তভোগীর রিট আসামির শরীরে ক্ষতচিহ্ন; স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন আদালত মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় বিবাদীকে বিশ হাজার টাকা জরিমানা আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস পালন করলো সিএমসি

আইনজীবীদের সুরক্ষা দিতে হাইকোর্টে রিট

  • প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৯৯৯ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্টঃ আইনজীবীদের সুরক্ষা আইন প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এস.এম মনিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চে আইনজীবী ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূইয়া এ রিট দায়ের করেন।

রিটে আইনজীবি সুরক্ষা আইন প্রণয়নে বিবাদীদের নিস্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষনা করা হবে না,এই মর্মে রুল চাওয়া হয়েছে।

আইন সচিব, আইন কমিশনের চেয়ারম্যান, স্বরাষ্ট্র সচিব, বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, সংসদ সচিবালয়ের সচিব, বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান, বার কাউন্সিলের সচিব ও পুলিশের আইজিকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

আইনজীবী ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূইয়া বলেন, সারা বাংলাদেশে গত কয়েক বছরে-৬৭ জনের বেশি বিজ্ঞ আইনজীবী হত্যা, নির্যাতন, হামলা/অপহরনের শিকার হয়েছেন। এ সংখ্যা আরো বেশী হতে পারে। বিজ্ঞ আইনজীবীগন জীবনের ঝুকি নিয়ে বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর ও স্পর্শকাতর মামলা পরিচালনা ও শুনানি করতে হয়। যার দরুন কোর্ট রুম থেকে বের হয়েই আদালতের অফিসার তথা বিজ্ঞ আইনজীবীগন সম্পূর্ণ নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েন এবং বিভিন্ন সময়ে অমানুষিক ও বর্বর নির্যাতনের শিকার হতে হয় প্রতিপক্ষের বা তাদের লেলিয়ে দেয়া সন্ত্রাসী দ্বারা। এ অবস্থায় আইনজীবী সুরক্ষা আইন না থাকার কারণে সারাদেশের আইনজীবীদের সাংবিধানিক ও মৌলিক অধিকার লংঘিত হচ্ছে।

রিট আবেদনে আবেদনে চাওয়া হয়েছে যেকোন বিজ্ঞ আইনজীবীর উপর কোন হামলা, মামলা, বর্বর নির্যাতন সহ যে কোন বেআইনী আক্রমন হইলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষনিকভাবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

এছাড়াও জুডিশিয়াল অফিসার, সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ও বার কাউন্সিলের নির্বাচিত প্রতিনিধিগনের সমন্বয়ে একটি স্বাধীন তদন্ত কমিটি বা কমিশন প্রতিষ্ঠা করে আইনজীবীগন আক্রান্ত হলে বা হয়রানির বা বর্বর নির্যাতনের সম্মুখীন হলে যথাযথ তদন্তের ক্ষমতা কমিটি বা কমিশনকে দেওয়ার জন্য নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ