1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
সমাজের অসঙ্গতি তুলে ধরাই সাংবাদিকদের কাজ : হাইকোর্ট বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা: দুদকের আবেদন পর্যবেক্ষণসহ নিষ্পত্তি পাঠ্যবইয়ে ভুল : এনসিটিবির চেয়ারম্যানকে হাইকোর্টে তলব মুনিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যা: রিপনের হাইকোর্টে আগাম জামিন সরকারি কর্মচারীদের গ্রেফতারে পূর্বানুমতি কেন অবৈধ নয় সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান দম্পতির বিচার শুরু বৃদ্ধা আছিয়াকে হাজির করতে এবার পুলিশকে নির্দেশ দিলেন হাইকোর্ট সিজিএম মোঃ শওকত আলীর সুস্থতা কামনায় ভার্চুয়াল দোয়া মাহফিল ই-কমার্স গ্রাহকদের স্বার্থরক্ষায় ৩৩ ভুক্তভোগীর রিট আসামির শরীরে ক্ষতচিহ্ন; স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন আদালত

উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে ভবন নির্মাণ: মালিককে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

  • প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৭৫ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্টঃ উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে ভবন নির্মাণ করায় রাজধানীর মিরপুরের কাজীপাড়ায় ভবনের মালিক বিল্লাল হোসেনকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন হাইকোর্ট। জরিমানার অর্থ আগামী দুই মাসের মধ্যে ঢাকার আহছানিয়া মিশন ক্যানসার হাসপাতালে দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিচারপরি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ভবন মালিক বিল্লাল হোসেনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফিরোজ উদ্দিন আহমেদ। বিবাদীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ বি এম রফিক উল্লাহ ও হুমায়ুন কবির পল্লব। রাজউকের পক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ইমাম হোসেন।

আইনজীবী এ বি এম রফিক উল্লাহ ও হুমায়ুন কবির পল্লব বলেন, হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা বহাল থাকা সত্ত্বেও ভবন নির্মাণের অপরাধে মিরপুরের কাজীপাড়ার বিল্লাল হোসেনকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন সর্বোচ্চ আদালত। বিল্লাল হোসেনকে আগামী দুই মাসের মধ্যে ঢাকার আহছানিয়া ক্যানসার হাসপাতালে টাকা দিতে বলা হয়েছে।

মামলার বিবরণ দিয়ে আইনজীবীরা বলেন, মিরপুরের কাজীপাড়ায় বিল্লাল হোসেন নামে এক ব্যক্তি তার নিজস্ব জমিতে ২০১৮ সালে পাঁচতলা ভবন নির্মাণের জন্য রাজউকের অনুমোদন নেন। অনুমোদন অনুযায়ী কাজ করার কথা। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী কাজ না করায় পাশের প্লটের শহীদুল ইসলাম জুয়েল রাজউককে একটি আবেদন করে যেন তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়। তখন রাজউক তদন্ত করে ২০১৮ সালে বাড়ির মালিককে ভবন ভেঙে ফেলার জন্য নোটিশ দেয়। নোটিশের বিষয়ে বাড়ির মালিক কোনো কর্ণপাত না করলে রাজউক এ ব্যাপারে চূড়ান্তভাবে নোটিশ দেয়। রাজউকের নোটিশের বিরুদ্ধে বাড়ির মালিক ওই নোটিশকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন। পরে আদালত রাজউকের আদেশ অমান্য করায় ওই বাড়ি নির্মাণের ওপর স্থিতাবস্থা জারি করেন।

হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা জারি থাকা অবস্থায় ওই বাড়ির মালিক ভবন নির্মাণ অব্যাহত রাখেন। স্থিতাবস্থা জারি থাকার সময়ে ওই ভবনটি তিলতলা থেকে পাঁচতলা পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়। পরে এ মামলার পক্ষভুক্ত আরেক ব্যক্তি হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় বাড়ির মালিক বিল্লাহ হোসেনের বিরুদ্ধে নতুন করে একটি আদালত অবমাননার পিটিশন দায়ের করেন। হাইকোর্ট রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে নির্মাণাধীন ভবনের ওপর স্থিতাবস্থা জারি করেন। কিন্তু বিল্লাল হোসেন হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা অমান্য করে ভবন নির্মাণ অব্যাহত রাখেন। পরে শহীদুল ইসলাম জুয়েল আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে বিল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

আদালত বৃহস্পতিবার বিল্লাল হোসেন ও শহীদুল ইসলাম জুয়েলের পৃথক দুটি রিট আবেদন নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন। রাজউকের চেয়ারম্যানকে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে বিল্লাল হোসেনের আবেদন নিষ্পত্তি করতে বলেছেন। একইসঙ্গে হাইকোর্টে আদেশ অমান্য করায় বিল্লাল হোসেনকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ