1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ন

আইডিয়াল স্কুলের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যানের পদ নিয়ে রুল

  • প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৪৫ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্টঃ উচ্চ আদালতের আদেশ অমান্য করে রাজধানীর মতিঝিলের আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান আবু হেনা মোর্শেদ জামানের (যুগ্ম সচিব) কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে তার পর পর চারবার একই প্রতিষ্ঠানে গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান (যুগ্ম সচিব) আবু হেনা মোর্শেদ জামান এবং প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

পর পর চারবার গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিটের শুনানি নিয়ে রোববার (২ জানুয়ারি) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুলের চেয়ারম্যান পদে আবু হেনা মোর্শেদ জামানের বহাল থাকা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, সেই মর্মে রুল জারির নির্দেশনা চেয়ে রিট করা হয়।

রিটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান (যুগ্ম সচিব) আবু হেনা মোর্শেদ জামান এবং প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষকে বিবাদী করা হয়।

আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ জানান, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানের আদেশক্রমে গত ৯ নভেম্বর কলেজ পরিদর্শক (শাখা) হতে আবু হেনা মোর্শেদ জামানকে সভাপতি (চেয়ারম্যান) হিসেবে অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর ওই আদেশ চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করা হয়।

তিনি আরও জানান, ২০১৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের দেওয়া রায়ে বলা হয়েছে, একই ব্যক্তি একই প্রতিষ্ঠানে দুবারের (টু টার্ম) বেশি চেয়ারম্যান থাকতে পারবেন না। কিন্তু ওই ব্যক্তি (আবু হেনা মোর্শেদ জামান) ২০১৭ সাল থেকে পর পর চারবার (ফোর টার্ম) একই প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান, যা আদালতের রায়ের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

রিটকারী এ আইনজীবী বলেন, আবু হেনা মোর্শেদ জামান ছিলেন সরকারের যুগ্ম-সচিব। তিনি ২০১৭ সালের ৪ মে থেকে ২০১৯ সালের ৪ মে পর্যন্ত, ২০১৯ সালের ১০ এপ্রিল থেকে ২০২১ সালের ১০ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ছিলেন। ২০২১ সালের ৯ নভেম্বর থেকে ২০২৩ সালের ৯ নভেম্বর পর্যন্ত সময়কালেও তিনি চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ পান। তাই রিটটি করা হয়।

এর আগে এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও অধ্যক্ষকে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান রিট আবেদনকারী। ওই নোটিশের পরও কোনো সাড়া না পেয়ে রিট আবেদন করা হয়।

গত বছরের ১৪ মার্চ অভিভাবক ফোরামের পক্ষ থেকে পাঠানো বিবৃতিতে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের তৎকালীন গভর্নিং বডি ভেঙে দিয়ে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারকে চেয়ারম্যান পদে বসানোর দাবি জানানো হয়। তার নেতৃত্বে নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে চার সদস্যবিশিষ্ট একটি অ্যাডহক কমিটি গঠন করে দিতে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির প্রতি আহ্বান জানান অভিভাবকরা।

ফোরামের চেয়ারম্যান ফাহিম উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক মো. রোস্তম আলীর এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারি করা ছাত্রছাত্রী ভর্তির নীতিমালা অমান্য করে প্রতি বছরই এবং বর্তমান ২০২১ শিক্ষাবর্ষে করোনাকালে লটারিবহির্ভূতভাবে দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে অবৈধভাবে গত ৮ ও ৯ ফেব্রুয়ারি টাকার বিনিময়ে ভর্তি করিয়েছে। শিক্ষার্থীপ্রতি পাঁচ লাখ টাকা আদায় করার অভিযোগ রয়েছে। ২০২০ শিক্ষাবর্ষেও একইভাবে ভর্তিবাণিজ্য করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছিল, স্কুল বন্ধ থাকা সত্ত্বেও তিনি নিয়মবহির্ভূতভাবে টাকার বিনিময়ে এক শাখা থেকে অন্য শাখায় শতাধিক শিক্ষার্থী বদলি করিয়েছেন। করোনাকালে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধের সরকারি নির্দেশনা থাকায় তা উপেক্ষা করে নিয়োগ বাণিজ্যের জন্য অপ্রয়োজনীয় ও অতিরিক্ত ২৫ জন শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। ২০১৯ সালে প্রায় ২০০ শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এখানেও বাণিজ্যের অভিযোগ রয়েছে।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ