1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি : আওয়ামী লীগ নেতার জামিন বহাল

  • প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১
  • ১১৯ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি ও সরকারবিরোধী অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মানিকগঞ্জের সিংগাইরের আওয়ামী লীগ নেতা অলি আহমেদ মোল্লার জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

আদালতে আসামির পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।

অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু বলেন, প্রতিপক্ষের লোকজন অলি আহমেদ মোল্লাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই মামলায় ফাঁসিয়েছেন। আদালতকে এ কথা বলেছি।

গত ৮ জুন আওয়ামী লীগ নেতা অলি আহমেদ মোল্লাকে জামিন দেন বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ। পরে এই আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

গত ২২ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি ও সরকারবিরোধী অপপ্রচার করার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মানিকগঞ্জের সিংগাইরের আওয়ামী লীগ নেতা অলি আহমেদ মোল্লাকে (৫০) গ্রেফতার করে পুলিশ। সিংগাইর উপজেলা ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক মো. টিপু সুলতান বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

গ্রেফতার অলি আহমেদ মোল্লা সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য। তিনি ওই ইউনিয়নের পূর্বভাকুম গ্রামের মৃত হাজী সিদ্দিক মোল্লার ছেলে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শামীম আহমেদ বলেন, গ্রেফতার অলি নিজের ‘অলি আহমেদ মোল্লা’ ফেসবুক আইডি থেকে বিভিন্ন সময় সরকারবিরোধী অপপ্রচার চালান। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়েও কটূক্তি করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অলি আহমেদ মোল্লা আগামীতে জয়মন্টপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে পোস্টার-ফেস্টুন ছাপিয়ে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আসছিলেন। এ ব্যাপারে জয়মন্টপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রিয়াজুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, অলি আহমেদ মোল্লা একজন আওয়ামী লীগের দুর্দিনের কর্মী এবং দলেন জন্য নিবেদিতপ্রাণ। আমার জানা মতে তিনি মোবাইল ফোনও ভালো মতো চালাতে পারেন না। তারপরও কীভাবে কী হলো বুঝতে পারছি না।

এম/এ/হ

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ