1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে ফখরুলসহ ৩৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ২১ নভেম্বর বিএনপি নেতা দুলুর বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলা চলবে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ৩১ অক্টোবর ৪৬০ কোটির মালিক কম্পিউটার অপারেটর নুরুল ফের রিমান্ডে ‘ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডি প্রতারক চক্রের লিডার’ ভুল চিকিৎসায় পুরুষত্বহীনতার অভিযোগ:২৪ ঘন্টার মধ্যে ওসিকে মামলা নেয়ার নির্দেশ দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেট ফেনীর দাদনার খাল দখল ও দুষণের অভিযোগ:স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট ফেনীর দাদনার খাল দখল ও দুষণের অভিযোগ:স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামীর প্রক্সি দেয়ার ঘটনায় করা মামলায় একব্যক্তির ২ বছর কারাদণ্ড

ফেনী কারাগার গেটে বিয়ে : সেই দম্পতির খোঁজখবর নিলেন হাইকোর্ট

  • প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ৯১ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্টঃ হাইকোর্টের আদেশে ফেনী জেলা কারাগারে ধর্ষণ মামলার আসামি জহিরুল ইসলাম ওরফে জিয়া উদ্দিনের সঙ্গে ভুক্তভোগী তরুণীর বিয়ে হয় ২০২০ সালের ২১ নভেম্বর। এই বিয়ের পর অনেক আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এই দম্পতির সংসার এখন কেমন চলছে, তারা সুখে আছেন কি-না, সে বিষয়ে খোঁজ নিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার (২৬ জুলাই) হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল বেঞ্চে শুনানি চলছিল। এ সময় অন্য একটি রিটের শুনানিতে অংশ নেন সেই ধর্ষণ মামলার আসামির আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফারুক আলমগীর চৌধুরী।

তার কাছে আদালত জানতে চান, ‘জিয়া উদ্দিন দম্পতি কেমন আছে? তাদের সংসার কেমন চলছে?’ জবাবে আইনজীবী বলেন, ‘আমি মাঝে-মাঝেই ফোন করে তাদের খোঁজ-খবর নিই। তারা সুখে আছেন।’

এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিনকে অবহিত করে হাইকোর্ট বলেন, ‘আমরা আদেশ দিয়ে জেলখানায় বিয়ে দিয়েছিলাম। এটা নিয়ে নানা পত্রিকায় নানাভাবে লেখালেখি হয়েছিল। তাদের দাম্পত্য জীবনটা কেমন হয়, এটার ওপর অনেক কিছুই নির্ভর করছে। এ কারণে অ্যাডভোকেট ফারুক আলমগীর চৌধুরীকে বলেছি সব সময় তাদের প্রতি খেয়াল রাখবেন।’

এ বিষয়ে আইনজীবী ফারুক আলমগীর চৌধুরী বলেন, ‘আদালত আজ জানতে চেয়েছিলেন জিয়া উদ্দিন দম্পতির সংসার কেমন চলছে? আমি বলেছি, তারা সুখে আছেন। কারণ, আমি সবসময় তাদের খোঁজ-খবর রাখি। এছাড়া আমি অ্যাটর্নি জেনারেলকে প্রস্তাব করেছি তাদের বাড়ি পরিদর্শনে যাওয়ার। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, করোনা শেষে প্রয়োজনে তিনি আমাদের সাথে যাবেন।’

গত বছরের ২১ নভেম্বর হাইকোর্টের আদেশের পর ফেনী জেলা কারাগারে ধর্ষণ মামলার আসামির সঙ্গে ভুক্তভোগী তরুণীর বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বর ও কনেসহ উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে এই বিয়ে সম্পন্ন হয়। ওইদিন সকালে মিষ্টি নিয়ে দুইপক্ষের আত্মীয়-স্বজনসহ আইনজীবীরা কারাগারের গেটে হাজির হন। পরে বিয়ের মূল আয়োজন সম্পন্ন করতে আসেন ফেনী জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মনিরুজ্জামান এবং বিয়ের কাজী আবদুর রহিম। এ সময় ৬ লাখ টাকা দেনমোহর এবং ১ লাখ উশুল ধার্য করে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। এ সময় মিষ্টিমুখ করে দুই পরিবারের সদস্যরা কোলাকুলি করেন।

গত বছরের ২৭ মে জেলার সোনাগাজীর এক তরুণী স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্যের ছেলে জহিরুল ইসলাম জিয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। ওই বছরের ২৯ মে জহিরুলকে গ্রেফতার করে সোনাগাজী মডেল থানা-পুলিশ। পরে তার পরিবার তরুণীর পরিবারের সঙ্গে আপস-মীমাংসা করেন। জহিরুল ওই তরুণীকে বিয়ে করবেন এমন কথা জানিয়ে তার পক্ষে হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করা হয়। হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের আদালত জহিরুলকে জামিন না দিয়ে কারাগার গেটে জহিরুল ও ভুক্তভোগী তরুণীর বিয়ের আয়োজন করার জন্য ফেনী কারাগারের তত্ত্বাবধায়ককে নির্দেশ দেন। সেই সঙ্গে বিয়ের বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেন। বিয়ের পর আদালত জহিরুল ইসলাম ওরফে জিয়া উদ্দিনকে এক বছরের জামিন দেন।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ