1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
শনিবার, ১৪ মে ২০২২, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনা হলফনামা আকারে হাইকোর্টে দাখিল

  • প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, ২ মার্চ, ২০২১
  • ২৮৮ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: গাজীপুরের কাশিমপুর হাই-সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি থাকা অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের (৫৩) মৃত্যুর ঘটনা হলফনামা আকারে (লিখিতভাবে) উচ্চ আদালতকে জানানো হয়েছে। আজ (মঙ্গলবার) ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া লেখক মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবেদনটি হাইকোর্টে দাখিল করেছেন। আগামীকাল এ বিষয়ে শুনানি হবে।

লেখক মুশতাকের মৃত্যুর বিষয়টি লিখিতভাবে গতকাল উচ্চ আদালতকে জানাতে বলেছিলেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে কার্টুনিস্ট আহমেদ কবীর কিশোরের জামিন শুনানিকালে আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া বলেন, লেখক মুশতাক মৃত্যুবরণ করেছেন। তখন আদালত বলেন, সেটি আপনি হলফনামা আকারে জানান। তখন তার জামিন আবেদন অ্যাবেট (বাদ) করা হবে। এরপর আদালতে কার্টুনিস্ট আহমেদ কবীর কিশোরের জামিন আবেদনের ওপর শুনানি করেন জ্যোর্তিময় বড়ুয়া। তার শুনানির পর আদালত এ বিষয়ে ৩ মার্চ বুধবার জবাব দেওয়ার জন্য রাষ্ট্রপক্ষকে বলেছেন। একইসঙ্গে ওইদিন আদেশের জন্য দিন রেখেছেন। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৮টার দিকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মুশতাককে মৃত ঘোষণা করেন।

ওইদিন কাশিমপুর কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, সন্ধ্যায় কারাগারের ভেতর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন মুশতাক আহমেদ। এ সময় তাকে কারা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মুশতাক আহমেদকে মৃত ঘোষণা করেন।

কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর যে মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন সেটি দায়ের করেছিলেন র‌্যাব-৩ এর ওয়ারেন্ট অফিসার আবু বকর সিদ্দিক। গত বছরের ৫ মে কিশোরসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা ‘আই অ্যাম বাংলাদেশি’ নামে ফেসবুক পেজে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি বা সুনাম ক্ষুণ্ন করতে বা বিভ্রান্তি ছড়ানোর উদ্দেশে অপপ্রচার বা গুজবসহ বিভিন্ন ধরনের পোস্ট দিয়েছেন; যা জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটায়।

মুশতাকের মৃত্যুর পর বিভিন্ন মহল থেকে বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জোরদার হয়েছে। কার্টুনিস্ট কবিরের মুক্তির দাবিও জানানো হচ্ছে।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ