1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১০:০৫ পূর্বাহ্ন

সামাজিক অবক্ষয়ে এমন ঘটনা: নাসিরের বিয়ে নিয়ে হাইকোর্ট

  • প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৭০ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও কেবিন ক্রু তামিমা সুলতানা তাম্মির বিয়ের প্রসঙ্গ টেনে হাইকোর্ট বলেছেন, নৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে সমাজে বাড়ছে এমন ঘটনা।

কথিত ধর্ষণ মামলায় এক ভুক্তভোগীর জামিন শুনানিতে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন মন্তব্য করেন।

ধর্ষণ মামলায় রাজধানীর দক্ষিণখান থানার পারভেজ ইসলাম এদিন হাইকোর্টে আসেন জামিন চাইতে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি এক নারীকে ধর্ষণ করেছেন। তার বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনেও একটি মামলা আছে।

জামিন শুনানির সময় আদালতে হাজির হন ধর্ষণ মামলার বাদী। তিনি আদালতকে জানান, পারভেজের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দিতে বাধ্য করেছেন তার স্বামী। এরই মধ্যে সেই স্বামীকে দিয়েছেন তালাকও। তিনি আদালতে পারভেজকে বিয়ে করার কথা জানান।

আদালত এ সময় ক্ষুব্ধ হয়ে দুজনকে দীর্ঘসময় দাঁড় করিয়ে রাখেন। একপর্যায়ে আদালত বলেন, এক ক্রিকেটারের বিয়ে নিয়েই তোলপাড় দেশ, এর মধ্যেই আরেক ঝামেলা এসে পড়ল। সামাজিক ও নৈতিক অবক্ষয়ের কারণে এ ধরনের ঘটনা বাড়ছে বলেও মন্তব্য করেন আদালত।

শুনানি শেষে দুজনকেই সতর্ক করে পারভেজ ইসলামকে জামিন দেন আদালত। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুল ইসলাম।

একসময়ের তারকা ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ে নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। গতকাল বুধবার তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মি ও নাসিরের বিরুদ্ধে মামলা করেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব।

এই বিষয়ে বুধবার রাজধানীর বনানীতে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন নাসির হোসেন। সেখানে তিনি জানান, বৈধভাবেই তাদের বিয়ে হয়েছে। তার স্ত্রীর দিকে কেউ আঙুল তুললে মেনে নেবেন না।

নাসির বলেন, ‘এতদিন ও শুধু তামিমা ছিল, আজ থেকে তামিমা হোসেন। আমি চাইব না কেউ কোনোভাবে ওর বিরুদ্ধে কিছু বলুক। যারাই যেখান থেকে কিছু বলবে আমি আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

নাসিরের স্ত্রী তামিমা বলেন, ‘আমার নামে অনেক ফেক ফেসবুক আইডি খোলা হয়েছে। সেগুলো থেকে আমাদের নামে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমি বলতে চাই, আমার যে ফেসবুক আইডি রয়েছে সেটা এখন ডিঅ্যাকটিভ করা আছে। পরে আমরা কিছু বললে তা নাসিরের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে জানাব।’

বুধবারই (২৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালতে মামলা করেন নাসিরের স্ত্রীর সাবেক স্বামী মো. রাকিব হাসান। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও রাকিবের বিয়ে হয়। তাদের আট বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। তাম্মি পেশায় একজন কেবিন ক্রু। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা রাকিবের নজরে আসে। পরে পত্র-পত্রিকায় তিনি ঘটনার বিষয়ে জানেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, রাকিবের সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক চলমান অবস্থাতেই তাম্মি নাসিরকে বিয়ে করেছেন; যা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ অবৈধ।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ