1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ন

অচিরেই গ্রেফতার হবেন পি কে হালদার : দুদক আইনজীবী

  • প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ২৫ মার্চ, ২০২১
  • ২৫২ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশে পালিয়ে থাকা পি কে হালদারের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের সব অফিসে রেড এলার্টের নোটিশ পাঠানো হয়েছে। অচিরেই পি কে হালদার গ্রেফতার হবেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) সুপ্রিম কোর্টের সাংবাদিকদের কাছে দুদক আইনজীবী খুরশিদ আলম খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

খুরশিদ আলম খান বলেন, ‘পিকে হালদার সম্পর্কে সবশেষ তথ্য হলো, ইন্টারপোল তাদের প্রত্যেকটি অফিসে রেড এলার্ট সংক্রান্ত নোটিশ পাঠিয়েছে। আমরা আশা করছি, অচিরেই পি কে হালদারকে গ্রেফতার করা যাবে।’

এর আগে গত ৯ ডিসেম্বর সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার করার অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে থাকা প্রশান্ত কুমার হালদারের গ্রেফতারি পরোয়ানা ইন্টারপোলের কাছে পাঠানো এবং তার বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান হাইকোর্ট।

১৮ নভেম্বর একটি জাতীয় দৈনিকে ‘পি কে হালদারকে ধরতে ইন্টারপোলের সহায়তা চাইবে দুদক’ শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নেয় হাইকোর্ট। গত ১৯ নভেম্বর তাকে বিদেশ থেকে ফেরাতে এবং গ্রেফতার করতে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়ে স্বপ্রণোদিত আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ওই আদেশ অনুসারে ২ ডিসেম্বর একটি প্রতিবেদন দাখিল করে দুদক। প্রশান্ত কুমার হালদার বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থেকে অন্তত সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা লোপাট করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

পরে দুই বিনিয়োগকারীর করা আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ১৯ জানুয়ারি এক আদেশে প্রশান্ত কুমার হালদারসহ সংশ্লিষ্ট ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

এর মধ্যে প্রশান্ত কুমার হালদার দেশে ফেরার জন্য আদালতের কাছে আবেদন করতে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের কাছে একটি পত্র দেন। এরপর কোম্পানিটি আদালতে আবেদন করে। ৭ সেপ্টেম্বর আদালত বলেছেন, তিনি কখন কীভাবে আসবেন তা জানাতে। পরে ২০ অক্টোবর একটি আবেদন করে কোম্পানিটি। যেখানে নির্বিঘ্নে দেশে আসার কথা বলা হয়েছে এবং ২৫ অক্টোবরের একটি টিকিটের কপিও সংযুক্ত করা হয়।

২১ অক্টোবর হাইকোর্ট এ বিষয়ে এক আদেশে দেশে আসার সঙ্গে সঙ্গে পি কে হালদারের গ্রেফতার নিশ্চিত করতে বলা হয়। পরে তার গ্রেফতারি পরোয়ানা বাস্তবায়ন করতে সংশ্লিষ্ট আদালতে পাঠাতে বলা হয়েছে।

পুলিশের মহাপরিদর্শক, ইমিগ্রেশন অথরিটিরি চিফ ও দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রতি এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ