1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন

অসহায়দের পাশে জুডিসিয়াল সার্ভিসের ১০ম ব্যাচের বিচারকরা

  • প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, ২৪ মে, ২০২০
  • ২৯৯ বার পঠিত হয়েছে

আলহামদুলিল্লাহ। আমরা বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিসের ১০ম ব্যাচের বিচারকরা বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রকৃত দরিদ্র এবং অসহায় ২৩৩ টি পরিবারের নিকট ঈদ উপহার পৌছে দিতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের সহকর্মীরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যেসব সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত সেসব সংগঠনের কয়েকটির মাধ্যমে এবং ভোলা, সাতক্ষীরায় সরাসরি আমাদের সহকর্মীদের মাধ্যমে করোনা ও ঘূর্ণিঝড় আম্পানে বিপর্যস্তদের মাঝে ঈদ উপহার তুলে দেওয়া হয়েছে।

মিনি ল স্কুলের মাধ্যমে চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৩০ জন বিধবা মহিলাকে আলাদা করে ইদ উপহার পৌছে দেওয়া হয়েছে। তাদের রোজগার ছিল না। করোনার কারণে কাজেও যেতে পারছিলেন না।

আঞ্চলিক সংগঠন আশ্রয়ের মাধ্যমে মাদারিপুরে ২৫ টি পরিবারকে ঈদ উপহার পৌছে দেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরায় করোনা এবং ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে বিপর্যস্ত ৪০ টি পরিবারকে আমাদের কয়েকজন সহকর্মীর মাধ্যমে ইদ উপহার পৌছে দেওয়া হয়েছে। শুরুতে দরিদ্র কয়েকটি পরিবারকে সহায়তা করার কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় আম্পান আঘাত হানার পরে আমরা ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যস্ত ৪০ টি পরিবারকে চিহ্নিত করে অন্তত ১০ দিনের খাবার সহায়তা পৌছে দিয়েছি।

ভোলায় একইভাবে করোনা ও ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যস্ত ১৫ টি পরিবারকে ঈদ উপহার পৌছে দেওয়া হয়েছে আমাদের এক সহকর্মীর মাধ্যমে।

পিরোজপুরে আমাদের এক সহকর্মীর দ্বারা পরিচালিত স্বপ্নযাত্রা-৯৯ এর মাধ্যমে করোনার কারণে  অসহায় হয়ে পড়া ২৩ টি পরিবারকে ঈদ উপহার পৌছে দেওয়া হয়েছে৷ এখানেও ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যস্তদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জে আমাদের দুই বিচারক আল মারকাজুল ইনিস্টিউটের মাধ্যমে ১০০ টি পরিবারকে ইদ উপহার পৌছে দিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে বয়োঃবৃদ্ধ এবং বিশেষ সুবিধা বঞ্চিতদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যেকটি প্যাকেটে চাল, ডাল, আলু, সেমাই, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী সরবরাহ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য ইতোপূর্বে বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস এসোসিয়েশনের মাধ্যমে অধস্তন আদালতের সকল বিচারক তাদের একদিনের বেতন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দেন। আশার কথা হচ্ছে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ করোনাকালীন দুর্যোগ মোকাবেলায় একযোগে কাজ করে যাচ্ছে।

আমরা ১০ম ব্যাচের বিচারকরা করোনা দুর্গতদের সহায়তার জন্য একটি ফান্ড গঠন করেছিলাম। খুব ক্ষুদ্র একটি প্রচেষ্টা ছিল। কিন্তু আমাদের সহকর্মীদের সহযোগিতায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কিছু অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটতে দেখে আমাদের এই প্রচেষ্টাকে ক্ষুদ্র মনে হয়নি। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতে এমন কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

নোয়াখালী জজকোর্টের বিচারক শেখ মুহিবুল্লাহ হাসানের ফেসবুক ওয়াল থেকে…

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ