1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন

করোনায় ঈদ: ব্যারিস্টার শামীম আজিজের ভাবনা

  • প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১
  • ১১১ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ। সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট করপোরেট আইনজীবী। বাংলাদেশ ব্যাংক,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন নামকরা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার আইনজীবী তিনি। এছাড়া ঢাকা ইউনিভার্সিটি এল এল এম লইয়ার্স এসোসিয়েশন(ডুলা) এর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। দেশে করোনা সংক্রমণের পর থেকেই তিনি নানা ভাবে মানুষকে সহযোগিতা করে আসছেন। করোনা রোধে চলমান লকডাউনের মধ্যে ঈদুল ফিতর সমাগত। এই ঈদ নিয়ে তার ভাবনাগুলো তুলে ধরেছেন।

ব্যারিস্টার শামীম আজিজ বলেন, করোনার কারণে এবার গ্রামে যাচ্ছি না। ঢাকাতেই থাকবো। পরিবার-পরিজন নিয়ে ঢাকাতে ঈদ করব। প্রতি বছর এলাকার দরিদ্র মানুষকে শাড়ি-লুঙ্গি দিয়ে থাকি। কিন্তু প্যানডামিকের কারণে এ বছর গ্রামের ও আশেপাশের দরিদ্র মানুষকে মাথাপিছু ১ হাজার টাকা করে দেওয়ার সিন্ধান্ত নিয়েছি। আমি মনে করি করোনার কারণে অনেকেই অনেক দিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ।ঢাকাতেও বিভিন্ন দিক দিয়ে মানুষকে সহযোগিতা করছি।

দেশের এই সংকটময় মুহুর্তে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন,আমি মনে করি ইসলামের বিধান অনুযায়ী বিত্তবানরা যদি যাকাত দেয় তাহলে এই সমাজে দারিদ্রতা,হাহাকার থাকার কথা না। প্যানডামিককে সামনে রেখে আমরা যে সময়টা পার করছি এই সময়ে দায়িত্বটা বিত্তবানদের বেশি। ধনীদের সম্পদে গরীবের অধিকার রয়েছে। এটা তো আমাদের ধর্মই বলে দিয়েছে। বিত্তবানদের এই সময়টাতে আরো বেশি খোলা হাতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। এটা একটা ক্রিটিকাল টাইম।

ব্যারিস্টার শামীম আজিজ মনে করেন,করোনার এই সময়ে আশে-পাশের মানুষকে সাহস দিতে হবে,মানসিক শক্তি যোগাতে হবে।

তিনি বলেন, ‘যদি মনে করেন আপনি করোনার কারণে ভীত,আপনি স্বশরীরে যেতে পারছেন না। কিন্তু মোবাইল ফোন তো আছে। ফোনের মাধ্যমেই আপনি আশে-পাশের সবার খবর রাখতে পারেন। এটা একটা মেন্ট্রাল স্ট্রেনথ।এই সময়টাতে অন্যকে মানসিক সাহসও দেওয়া একটা বড় কাজ। আপনি নিজে যেমন সবার খোজ খবর রাখবেন। নিজের খবরও জানাবেন। ইনফরমেশনটা জানা না থাকলে তো পাশে দাঁড়ানো যায় না। কানেকটিভিটি ঠিক রাখা এই সময়ে খুব গুরুত্বপূর্ণ। সবাই সবার খবর রাখা এই ক্রিটিকাল মুহুর্তে খুবই প্রয়োজন বলে মনে করি।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ