1. [email protected] : dalim :
  2. [email protected] : dalim1 :
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
কুড়িগ্রাম জেলা ও দায়রা জজকে যুক্তিতর্কের জাবেদা কপি প্রদানের নির্দেশ উচ্চ আদালতের ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে ফখরুলসহ ৩৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ২১ নভেম্বর বিএনপি নেতা দুলুর বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলা চলবে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ৩১ অক্টোবর ৪৬০ কোটির মালিক কম্পিউটার অপারেটর নুরুল ফের রিমান্ডে ‘ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডি প্রতারক চক্রের লিডার’ ভুল চিকিৎসায় পুরুষত্বহীনতার অভিযোগ:২৪ ঘন্টার মধ্যে ওসিকে মামলা নেয়ার নির্দেশ দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেট ফেনীর দাদনার খাল দখল ও দুষণের অভিযোগ:স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট ফেনীর দাদনার খাল দখল ও দুষণের অভিযোগ:স্বপ্রণোদিত হয়ে তদন্তের নির্দেশ দিলেন স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট

দেওয়ানী মামলায় মেডিয়েশন পদ্ধতি প্রতিপালনে সুপ্রিম কোর্টের সার্কুলার,বিমসের অভিনন্দন

  • প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, ২২ মার্চ, ২০২১
  • ৩৪৯ বার পঠিত হয়েছে

ল লাইফ রিপোর্ট: দেওয়ানী সংক্রান্ত মামলায় মেডিয়েশন পদ্ধতি( মধ্যস্থতার বিধান) মেনে চলতে বিচারকদের প্রতি কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

রোববার সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর সাক্ষরিত এক  সার্কুলারে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে দ্রুত মামলা নিস্পত্তিতে ও মামলাজট কমাতে মেডিয়েশনের বিধান প্রতিপালনে নির্দেশনা জারি করায় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন,আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীসহ সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল মেডিয়েশন সোসাইটির(বিমস) চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস এন গোস্বামী।

অ্যাডভোকেট এস এন গোস্বামী বলেন, আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীর নেতৃত্বে ও বিমসের সহযোগিতায় সারাদেশের বিচারকদের মেডিয়েশন বিষয়ে প্রশিক্ষণ চলমান থাকা অবস্থায় মেডিয়েশন পদ্ধতি( মধ্যস্থতার বিধান) প্রতিপালনে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা বাংলাদেশে মেডিয়েশন আন্দোলনকে আরো গতিশীল করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

দেওয়ানী সংক্রান্ত মামলায় মেডিয়েশন পদ্ধতি( মধ্যস্থতার বিধান) মেনে চলতে সার্কুলারে বলা হয়েছে, অধস্তন দেওয়ানী আদালত এবং অর্থ ঋণ আদালতসমূহে কোন মোকদ্দমায় বিবাদী কর্তৃক লিখিত জবাব দাখিলের পর ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক ধারা এবং অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২ ধারার বিধানমতে মধ্যস্থতার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে মধ্যস্থতার উদ্যোগ গ্রহণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯গ ধারায় উক্ত কার্যবিধির ৬০ আদেশের অধীনে মূল মামলার ডিক্রির বিরুদ্ধে দায়েরকৃত আপিলসমূহ নিস্পত্তির ক্ষেত্রেও মধ্যস্থতার পন্থা অবলম্বনের নির্দেশনা রয়েছে। এছাড়াও দ্যা আরবিট্রেশন অ্যাক্ট ২০০১ এর ২২(১) ধারায় এবং বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ২১০ ধারাসহ অন্যান্য আইনেও মধ্যস্থতার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির বিধান রয়েছে।

‘সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, অধস্তন অনেক দেওয়ানী আদালত, দেওয়ানী আপিল আদালত এবং অর্থ ঋণ আদালত মধ্যস্থতা সংক্রান্তে দেওয়ানী কার্যবিধির ৮৯ক ও ৮৯গ ধারার এবং অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২ ধারার বিধানাবলী যথাযথভাবে অনুসরণ করছেন না। এই বিধানাবলী প্রয়োগ না করার কারণে দীর্ঘসূত্রিতার মাধ্যমে একদিকে যেমন মামলাজট বুদ্ধি পাচ্ছে অন্যদিকে আপীল ও বিভিশন মামলার সংখ্যাও সমানহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে, বিচারপ্রার্থী জনগণের সময়, শ্রম ও অর্থের অপচয় হচ্ছে।

‘১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক ও ৮৯গ ধারার এবং অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২ ধারার বিধান যথাযথভাবে অনুসরণ করে দেওয়ানী মোকদ্দমা, অর্থ ঋণ মামলা এবং আপিলসমুহে আবশ্যিকভাবে মধ্যস্থতার মাধ্যমে নিষ্পত্তির উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া দ্যা আরবিট্রেশন এ্যাক্ট ২০০১ এর ২২(১) ধারা এবং বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ২১০ ধারাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আইন ও মধ্যস্থতার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির যে বিধান রায়েছে তা যথাযথভাবে প্রতিপালন করতে হবে। অধস্তন দেওয়ানী আদালত সামূহে মামলাজট হ্রাস করার জন্য মধ্যস্থতার মাধ্যমে মোকদ্দমা নিস্পত্তি করা সমীচীন মর্মে সুপ্রিম কোর্ট স্পেশাল কমিটি ফর জুডিসিয়াল রিফর্মস ইতোমধ্যে মতামত প্রদান করেছে। মধ্যস্থতার মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হলে দেওয়ানী মোকদ্দমা দ্রুত নিষ্পত্তিসহ আপিল ও রিভিশনের সংখ্যা কমবে এবং মামলা জট হ্রাস পাবে।

 

১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক(১) ধারার বিধান অনুাযায়ী মধ্যস্থতার মাধ্যমে নিস্পত্তির জন্য আদালত শুনানি মুলতবি রেখে নিজেই মধ্যস্থতা করবেন কিংবা পক্ষগণের আইনজীবী বা আইনজীবীদের নিকট অথবা আইনজীবী নিযুক্ত না হয়ে থাকলে পক্ষ বা পক্ষগণের সম্মতিতে উপধারা (১০) অনুসারে জেলা জজ কর্তৃক এতদুদ্দেশ্যে প্রণীত প্যানেলের কোন মধ্যস্থতাকারীর নিকট মোকদ্দমাটি মধ্যস্থতার জন্য প্রেরণ করবেন অথবা আইনগত সহায়তা প্রদান আইন, ২০০০ এর ২১ক (১) ধারার অধীন নিয়োগপ্রাপ্ত লিগ্যাল এইড অফিসারের নিকট প্রেরণ করবেন। এছাড়াও অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২(২) ধারার বিধান অনুযায়ী মামলার পক্ষগণের পারস্পরিক সম্মতির ভিত্তিতে কোন পক্ষ কর্তৃক নিয়োজিত নয় এমন একজন আইনজীবী অথবা কোন অবসরপ্রাপ্ত বিচারক, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অথবা অন্য যে কোন উপযুক্ত ব্যক্তিকে মামলা নিষ্পত্তির উদ্দেশ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নিযুক্ত করা যাবে ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘এমতাবস্থায়, অধস্তন দেওয়ানী আদালত এবং আপিল আদালতসমূহকে ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক ও ৮৯গ ধারা, অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২ ধারা, দ্যা আরবিট্রেশন এ্যাক্ট ২০০১ এর ২২(১) ধারা এবং বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ২১০ ধারাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আইনে মধ্যস্থতার (Mediation) মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির যে বিধান রয়েছে তা যথাযথভাবে প্রতিপালনের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো।একইসাথে ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক(১০) ধারার বিধান অনুযায়ী দেশের সকল জেলার জেলা জজগণকে সংশ্লিষ্ট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতির সাথে পরামর্শক্রমে মধ্যস্থতাকারীগণের একটি হাল-নাগাদ তালিকা প্রস্তুত করে সুপ্রিম কোর্টে প্রেরণ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো।’

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘এই সার্কুলারের কোনো নির্দেশনাবলী অনুসরণে কোন সমস্যা বা প্রতিবন্ধকতা দেখা দিলে বা কোনো বিচারক কর্তৃক ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধি আইনের ৮৯ক ও ৮৯গ ধারার এবং অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ২২ ধারার বিধানসহ মধ্যস্থতা সংশিষ্ট অন্যান্য আইনের বিধানাবলী প্রতিপালনে অনীহা বা গাফিলতি পরিলক্ষিত হলে বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টকে অবহিত করার জন্য স্থানীয় নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হলো।’

উল্লেখ্য, সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন ও আইন মন্ত্রণালয়ের অনুমতি সাপেক্ষে বিমসের উদ্যোগে ক্রমান্বয়ে সারাদেশের বিচারকদের মেডিয়েশন(মধ্যস্থতা) বিষয়ে প্রশিক্ষণ চলছে। ইতিমধ্যেই রংপুর,রাজশাহী ও বরিশাল বিভাগের বিচারকদের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। খুলনা বিভাগের বিচারকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালার জন্য আগামী ২ ও ৩ এপ্রিল দিন ধার‌্য রয়েছে। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আপিল বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মেডিয়েটররা প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছেন।

অনুগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ সম্পর্কীত আরো সংবাদ